সোমবার, ২২ Jul ২০২৪, ০২:১৪ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
চেয়ারম্যান: মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন, বার্তা প্রধান : মোহাম্মদ আসিফ খোন্দকার, আইনবিষয়ক সম্পাদক: অ্যাডভোকেট ইলিয়াস , যোগাযোগ : ০১৬১৬৫৮৮০৮০,০১৮১১৫৮৮০৮০, ঢাকা অফিস: ৪৩, শহীদ নজরুল ইসলাম রোড, চৌধুরী মল (৫ম তলা), টিকাটুলি ১২০৩ ঢাকা, ঢাকা বিভাগ, বাংলাদেশ মেইল: bdprotidinkhabor@gmail.com চট্টগ্রাম অফিস: পিআইবি৭১ টাওয়ার , বড়পুল , চট্টগ্রাম।
সংবাদ শিরোনাম:
কোটা আন্দোলনে সাধারণ স্কুল কলেজ ছাত্র ও ছাত্রীরা ১০ ঘন্টা বন্ধ করে দেয় নওগাঁ-সান্তাহারের রেলযোগাযোগ যশোরের ঝিকরগাছায় প্রবাসীর স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা ,কন্যা গুরুতর আহত বঙ্গবন্ধু কন্যা গোলামী চুক্তি করেননি উন্নয়নের চুক্তি করেছেখাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদা নওগাঁর মান্দা গোটগাড়ী অধ্যক্ষের কক্ষের তালা ভেঙে প্রবেশ করলেন উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাংবাদিকদের বিতর্কিত করায় এনবিআর কর্মকর্তা মতিউরের প্রথম স্ত্রী লাকীর বিরুদ্ধে বিএমইউজে চট্রগ্রাম জেলা আহবায়ক কমিটির প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের প্রয়াণ দিবস আজ জুয়া খেলার সরঞ্জাম ও নগদ টাকাসহ পাঁচজন জুয়াড়ি গ্রেফতার বিপৎসীমার ওপরে তিস্তা-ধরলার পানি, পানিবন্দি ১৫ হাজার মানুষ হাড্ডাহাড্ডি দুই চৌধুরীর ‘লড়াই লোহাগাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জিতে গেলেন খোরশেদুল আলম চৌধুরী কোন লক্ষণে বুঝবেন বিবাহবিচ্ছেদ ঘটতে পারে?

এবার ভারতের পিচ নিয়ে মুখ বন্ধ করতে বললেন রোহিত

স্পোর্টস ডেস্ক

উপমহাদেশে খেলতে এলে বিদেশি দলগুলোকে পড়তে হয় স্পিন-ফাঁদে। ঠিক একইভাবে উপমহাদেশের বাইরে প্রস্তুত থাকে ঘাসের গতিময় উইকেট। কিন্তু স্পিনসহায়ক উইকেট নিয়ে সমালোচনা হলেও পেস উইকেট নিয়ে কথা হয় না, এমন দ্বিমুখী নীতি কেন? এমন প্রশ্ন তুলে এবার ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া

কেপটাউনে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার টেস্ট শেষ হয়েছে দেড় দিনেরও কম সময়ে। যে টেস্টে একদিনেই পড়েছিল ২৩ উইকেট। ভারত টেস্টটি জিতেছে ৭ উইকেটে। সবমিলিয়ে এই টেস্টে খেলা হয়েছে ৬৪২ বল বা ১০৭ ওভার।

টেস্ট ইতিহাসেরই সবচেয়ে সংক্ষিপ্ততম ম্যাচ ছিল এটি। কেন এসব নিয়ে সমালোচনা হয় না, ভারত তাদের পছন্দমতো পিচ বানালেই কথা হয়, সেই প্রশ্ন তুললেন রোহিত।

ভারতীয় অধিনায়ক বলেন, ‘আমরা দেখেছি এই ম্যাচে কী ঘটেছে। পিচ কেমন আচরণ করেছে। সত্যি বলতে কি, যতক্ষণ পর্যন্ত সবাই ভারত নিয়ে মুখ বন্ধ রাখছে, ভারতের পিচ নিয়ে বেশি কথা বলা বন্ধ রাখছে, এ ধরনের উইকেটে খেলতে আমার আপত্তি নেই। এখানে আমরা নিজেদেরই চ্যালেঞ্জ জানাতে এসেছি। হ্যাঁ, এটা বিপজ্জনক, এটা চ্যালেঞ্জিং। কিন্তু অন্যরা যখন ভারতে যায়, তারাও চ্যালেঞ্জ সঙ্গে করেই যায়।’

গত ১৯ নভেম্বর বিশ্বকাপ ফাইনাল হয়েছিল আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে। সে পিচকে ‘গড়পড়তার নিচে’ রেটিং দিয়েছিল আইসিসি। এবার সেই প্রসঙ্গও সামনে টানলেন রোহিত। বললেন, ‘আমার এখনো বিশ্বাস হয় না, বিশ্বকাপ ফাইনালের উইকেটকে গড়পড়তার নিচে বলা হয়েছে। একজন ব্যাটার (ট্রাভিস হেড) সেঞ্চুরি করেছিল। এই উইকেট কীভাবে বাজে হয়?’

রোহিতের মনে হয়, ভারতে খেলা হলেই কেবল পিচ নিয়ে কথা হয়। সেজন্য ম্যাচ রেফারিদেরও কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন ভারতীয় অধিনায়ক, ‘ম্যাচ রেফারি কীভাবে পিচ রেটিং প্রস্তুত করেন, সেটি দেখতে পারলে আমার ভালো লাগবে। আমরা জানি, ভারতে প্রথম দিন থেকে বল স্পিন করে। যেটাকে বলা হয়, ঠিক নয়। কিন্তু বল যদি প্রথম দিন থেকে সিম করে, তাহলে ঠিক আছে। কিন্তু এটাও ঠিক নয়।’

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ওয়েবসাইট এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পুর্ণ বেআইনি
Design & Development BY ThemeNeed.Com