বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:৫৭ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
প্রকাশক ও সম্পাদক : মোঃ বিল্লাল হোসেন।  আইনবিষয়ক সম্পাদক: অ্যাডভোকেট রাসেল । যোগাযোগ : ০৩১-৭২৮০৮৫, ০১৮১১৫৮৮০৮০ মেইল: bdprotidinkhabor@gmail.com জহুর উল্লাহ বিল্ডিং (৩য় তলা), পানওয়ালা পাড়া, চৌমুহনী, উত্তর আগ্রাবাদ ১২৭৭, চট্টগ্রাম।
সংবাদ শিরোনাম:
নওগাঁ প্রাইভেট কার থেকে ৭২ কেজি গাঁজাসহ মুনির হোসেন নামে এক জন গ্রেফতার আদিতমারীতে তিস্তা সার্বিক গ্রাম উন্নয়ন সমবায় সমিতির সভাপতি এম,এ হাশেমের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ রাঙামাটি জেলা শহরের উপকণ্ঠ মানিকছড়িতে স্যালাইনের ব্যাগে চোলাই মদ, নারী গ্রেফতার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আর ও এক রোহিঙ্গা শিশুর মৃত্যু লোহাগাড়ায় ২৫টি স্মার্ট মোবাইল সেট উদ্ধারপূর্বক মালিকের নিকট হস্তান্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অধিনায়কের কার্যালয় র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৭ পতেঙ্গা, চট্টগ্রাম যশোরের শার্শায় ৩টি অবৈধ  ক্লিনিকের অপারেশন থিয়েটার সিলগালা করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ  নওগাঁর ধামুইরহাটের হরিতকিডাঙ্গা থেকে ট্যাপান্টাডলসহ ০১ মাদক কারবারী কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৫ পুলিশ লাইনস মাঠে পুলিশ সপ্তাহ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যশোরের কেশব বিরল রোগে আক্রান্ত মেধাবী শিক্ষার্থী অনুশিখা কে বাচাতে এগিয়ে আসুন

নুসরাতের বাবা ইউসুফ আলী অনেক আগেই মারা গেছেন

টাঙ্গাইল পুলিশ লাইন্সে বাংলাদেশ পুলিশ ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে গতকাল (৯এপ্রিল) শনিবার রাতে। এতে সাধারণ কোঠায় নারী হিসেবে চাকরিতে চূড়ান্ত হয়েছেন টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার ঢাবনাজোর গ্রামের নুসরাত জাহান ইমা। চাকরিতে নিয়োগ পেয়ে উচ্ছ্বসিত নুসরাত বলেন, ‘কল্পনাও করতে পারিনি মাত্র ১২০ টাকায় পুলিশের চাকরি পাবো। ’

মা নার্গিস বেগম দর্জির কাজ করেন। নুসরাতের মা মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষের কাছ থেকে কাপড় বানানোর জন্য কাপড় আনতেন আর কাপড় সেলাই করে টাকা উপার্জন করে তার পড়াশোনার খরচ যোগাতো।

নুসরাত জাহান ইমা টাঙ্গাইল বাসাইল উপজেলার বাথূলী সাদী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও টাঙ্গাইল সদর উপজেলার আবেদা খানম গার্লস কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেছেন এ বছর।

নুসরাত জাহান বলেন, ‘মা দর্জির কাজ করে মানুষের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে কাপড় এনে সেলাই মেশিনে কাজ করে। বাবা নেই, আমার মাই সবকিছু। আশা করি এখন মায়ের কষ্ট দূর করতে পারবো।

তিনি আরো বলেন, ‘নিজেকে পুলিশের একজন সদস্য হিসেবে ভাবতে পেরে শান্তি লাগছে। ১২০ টাকা দিয়ে পুলিশে আবেদন করেছিলাম, বাকি কোনো টাকা লাগেনি, তাই সবাইকে বলবো নিজের যোগ্যতা অনুযায়ী এখনো চাকরি পাওয়া যায়। পুলিশে চাকরি করে দেশের সেবা করতে চাই।

নুসরাত জাহান ইমার মা নার্গিস বেগম বলেন, ‘মেয়ের চাকরি হয়েছে শুনেই মনে হচ্ছে আমার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে পেরেছি। মেয়ে পুলিশে চাকরি পেয়েছে, অনেক আনন্দ লাগছে।

টাঙ্গাইল জেলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার বলেন, ‘এ বছর টাঙ্গাইল জেলা থেকে ১০০ জন পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ দেওয়া হয়েছে তার মধ্যে নারী ১৩ জন ও পুরুষ ৮৭ জন। প্রাথমিকভাবে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছিল ২২৫ জন। এর মধ্যে ১০০ জনকে ভাইবা পরীক্ষার মাধ্যমে চূড়ান্ত করা হয়েছে। আগামী মঙ্গলবার তাদের টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে মেডিকেল টেস্ট করে পরবর্তীতে ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে চূড়ান্ত মেডিকেল টেস্ট করিয়ে ট্রেনিংয়ের জন্য পাঠানো হবে।

ফলাফল ঘোষণা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নিয়োগ বোর্ডের সদস্য গাজিপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সানোয়ার হোসেন, ঢাকা রেঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার সাজিদুর রহমান, টাঙ্গাইল জেলার সহকারী পুলিশ সুপার শরফুদ্দিন আহমেদ,ডি আই ওয়ান হারেজ মিয়াসহ পুলিশ ও প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সদস্যরা।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ওয়েবসাইট এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পুর্ণ বেআইনি
Design & Development BY ThemeNeed.Com