রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৪৩ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
প্রকাশক ও সম্পাদক : মোঃ বিল্লাল হোসেন।  আইনবিষয়ক সম্পাদক: অ্যাডভোকেট রাসেল । যোগাযোগ : ০৩১-৭২৮০৮৫, ০১৮১১৫৮৮০৮০ মেইল: bdprotidinkhabor@gmail.com জহুর উল্লাহ বিল্ডিং (৩য় তলা), পানওয়ালা পাড়া, চৌমুহনী, উত্তর আগ্রাবাদ ১২৭৭, চট্টগ্রাম।
সংবাদ শিরোনাম:
বিপিএম ও পিপিএম পদক পাচ্ছেন মৌলভীবাজার জেলার তিন পুলিশ অফিসার কমলগঞ্জে দিনব্যাপি পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত মহাসড়কে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি জোরদার করতে হবে: হাইওয়ে পুলিশ প্রধান লোহাগাড়ায় আইডিয়াল স্কুলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আলোচনা, বার্ষিক পুরুষ্কার বিতরণী ও সেরা মা অ্যাওয়ার্ড প্রদান সংগঠন বিরোধী কার্ষকলাপের অভিযোগে যশোর জেলা  যুবলীগ নেতা মিলনকে অব্যাহতি ভাষা শহিদদের প্রতি মৌলভীবাজার পুনাকের শ্রদ্ধাঞ্জলি মৌলভীবাজারে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে পুলিশ আওয়ামী লীগ হট্রগোল শ্রীমঙ্গলে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ গভীর শ্রদ্ধার সাথে ভাষা শহীদদের স্মরণ শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের বিনয়বাঁশী শিল্পীগোষ্ঠী’র উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালিত

টাঙ্গাইলের সখীপুরে নদীর পাড়ের মাটি কেটে বিক্রি জমি ও বাড়ি ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা

টাঙ্গাইলের সখীপুরে নদীর পাড় কেটে মাটি বিক্রির অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক মাটি ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে । উপজেলার দাড়িয়াপুর ইউনিয়নের বংশাইল নদীর পাড় কেটে এ মাটি বিক্রির ঘটনা ঘটেছে। এতে নদীর গতি পথ বদলে গিয়ে ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কার করছে স্থানীয়রা।

সরোজমিনে দেখা যায় উপজেলার দাড়িয়াপুর ইউনিয়নের বংশাইল নদীর পাড়ে ভেকু দিয়ে মাটি কাটছে স্থানীয় আতাউর রহমান নামের এক মাটি ব্যবসায়ী। ট্রাফি ট্রাকটর দিয়ে মাটি নেয়া আনার ফলে গ্রামীণ কয়েকটি রাস্তা ভেঙে যাওয়ার পথে। মাটি গুলো স্থানীয় বাড়িতে, আবাদি জমি ভরাট ও একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাটের কাজে বিক্রি হচ্ছে।

নদীর পাড় কাটায় বর্ষার সময় নদীর গতি পথ বদল হয়ে আবাদি জমি ও বাড়ি ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে মনে করছে এলাকাবাসী। এই প্রতিবেদককে দেখে স্থানীয় মেছের উদ্দিন নামের এক লোক এগিয়ে এসে বলেন, এই জমি আমার পৈত্রিক সম্পত্তির। এটা কোন খাস জমি না। যুবলীগ নেতা হিসেবে প্রভাব খাটিয়ে নদীর পাড়ের মাটি কেটে বিক্রির ফলে স্থানীয়দের জনমনে নিরব কান্না।

নিজেকে যুবলীগ নেতা দাবী করে ওই ভেকু ও মাটি ব্যবসায়ী আতোয়ার রহমান বলেন, আমি অন্যায় কোন কাজ করি না৷ সরকারি স্কুলের মাঠ ভরাট কাজে এ মাটি বিক্রি করছি। এ ছাড়া রাস্তা যেখানে নষ্ট হয়েছে সেখানে মাটি দিয়ে সংস্কার করে দিবো।এ বিষয়ে উজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাকিয়া সুলতানা বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই তাই এ বিষয়ে আমি কোন মন্তব্য করতে পাচ্ছি না।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ওয়েবসাইট এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পুর্ণ বেআইনি
Design & Development BY ThemeNeed.Com