রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৪৩ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
চেয়ারম্যান: মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন, বার্তা প্রধান : মোহাম্মদ আসিফ খোন্দকার, আইনবিষয়ক সম্পাদক: অ্যাডভোকেট ইলিয়াস , যোগাযোগ : ০১৬১৬৫৮৮০৮০,০১৮১১৫৮৮০৮০, ঢাকা অফিস: ৪৩, শহীদ নজরুল ইসলাম রোড, চৌধুরী মল (৫ম তলা), টিকাটুলি ১২০৩ ঢাকা, ঢাকা বিভাগ, বাংলাদেশ মেইল: bdprotidinkhabor@gmail.com চট্টগ্রাম অফিস: পিআইবি৭১ টাওয়ার , বড়পুল , চট্টগ্রাম।

বাণিজ্যমেলায় শীতের প্রভাব, ছুটির দিনেও ক্রেতা-দর্শনার্থী কম

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

শীতে রাজধানীর জনজীবনও বিপন্ন। তার প্রভাব পড়েছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার বেচাকেনায়ও। সরকারি ছুটির দিনেও মেলায় কমেছে ক্রেতা ও দর্শনার্থী।আজ (৭ জানুয়ারি) শনিবার  বাণিজ্যমেলা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, মেলা শুরুর পর প্রথম ছুটির দিন গতকাল  (৬ জানুয়ারি) শুক্রবার ক্রেতা-দর্শনার্থীর সংখ্যা কিছুটা বেড়েছিল। তবে তীব্র শীত পড়ায় আজকের চিত্র ব্যতিক্রম। সরকারি ছুটির দিন হলেও আগের দিনের তুলনায় ক্রেতা অনেক কম। অথচ আজ  (৭ জানুয়ারি) শনিবার  ভালো ক্রেতা সমাগম আশা করেছিলেন তারা।

এদিকে, শীত বেশি হওয়ার কারণে যেসব ক্রেতা আসছেন, তাদের বেশিভাগ মেলার মূল প্রাঙ্গণ বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী এক্সিবিশন সেন্টারের (বিবিসিএফইসি) মধ্যে ঘোরাফেরা করছেন। বাইরের স্টল-প্যাভিলিয়নের ক্রেতা তুলনামূলক কম।

বাণিজ্যমেলায় শীতের প্রভাব, ছুটির দিনেও ক্রেতা-দর্শনার্থী কমমেলায় আকিজ প্লাস্টিকসের সিনিয়র অপারেশন ম্যানেজার মিনহাজ বিন মিজান বলেন, ঢাকায় কয়েকদিন বেশ শীত পড়ছে। তাই কাস্টমার কম। বেচাকেনাও প্রভাব পড়েছে। আশা করছি, শীত কমলে মেলার কাস্টমার বাড়বে।

তিনি বলেন, সারাদেশ থেকে মেলা উপলক্ষে মানুষ ঢাকায় আসেন। এবার সেই সংখ্যাও মনে হচ্ছে কমেছে। সবমিলিয়ে একটা নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।মিরপুর থেকে পরিবার নিয়ে মেলায় ঘুরতে আসা হুসাইন শফিউদ্দিন বলেন, সকালে এত ঠান্ডা ছিল যে, ঘর থেকেই বের হওয়া মুশকিল। তারপরও চলে এলাম।

কারণ অন্য ছুটির দিনে সময় বের করতে পারবো না।তিনি বলেন, তবে এমন অবহাওয়া বাচ্চাদের নিয়ে ঘোরার জন্য উপযুক্ত নয়। প্রচুর ঠান্ডাজনিত রোগ হচ্ছে। আমরাও অল্প সময় থেকে ফিরে যাবো।বাণিজ্যমেলায় শীতের প্রভাব, ছুটির দিনেও ক্রেতা-দর্শনার্থী কম

অন্যদিকে মেলায় অন্যান সময়ে প্রচুর তরুণ-তরুণী, যুবকরা আসেন মোটরসাইকেল নিয়ে। ঠান্ডার কারণে এমন ক্রেতা-দর্শনার্থীর সংখ্যাও উল্লেখযোগ্য হারে কম। যারা এসেছেন তাদের বেশিভাগ আশপাশের এলাকার। কেনাকাটার থেকে তাদের ঘোরাঘুরিতে আগ্রহ বেশি। খাওয়া-দাওয়া হৈ-হুল্লোড় করে তারা কিছুটা মাতিয়ে রেখেছেন মেলা প্রাঙ্গণ।

বাণিজ্যমেলা ঘুরে দেখা গেছে, যারা এসেছেন তাদের মধ্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ও ক্রোকারিজ পণ্যের স্টলে আগ্রহ বেশি। কেউ আবার ভিড় করছেন গরম কাপড়ের দোকানে। মেলায় কেউ এসেছেন বন্ধুদের নিয়ে। কেউবা এসেছেন পরিবার-পরিজন নিয়ে। মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে তারা ছবি তুলে সময় কাটাচ্ছেন বেশি। অনেকেই পছন্দের পণ্য খুঁজছেন এবং কেনাকাটা করছেন।

ক্রেতা-দর্শনার্থীর চাপ কম থাকায় মেলায় আগতরা নিবিঘ্নে কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মেলা প্রাঙ্গণে আসতে পারছেন। সেখান থেকে বিআরটিসির দুইতলা বাস চলছে একের পর এক। ৩০০ ফিট রাস্তায় শনিবার দুপুরে কোথাও কোনো যানজট ছিল না।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ওয়েবসাইট এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পুর্ণ বেআইনি
Design & Development BY ThemeNeed.Com