বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:১৭ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
প্রকাশক ও সম্পাদক : মোঃ বিল্লাল হোসেন।  আইনবিষয়ক সম্পাদক: অ্যাডভোকেট রাসেল । যোগাযোগ : ০৩১-৭২৮০৮৫, ০১৮১১৫৮৮০৮০ মেইল: bdprotidinkhabor@gmail.com জহুর উল্লাহ বিল্ডিং (৩য় তলা), পানওয়ালা পাড়া, চৌমুহনী, উত্তর আগ্রাবাদ ১২৭৭, চট্টগ্রাম।
সংবাদ শিরোনাম:
ভাষা শহিদদের প্রতি মৌলভীবাজার পুনাকের শ্রদ্ধাঞ্জলি মৌলভীবাজারে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে পুলিশ আওয়ামী লীগ হট্রগোল শ্রীমঙ্গলে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ গভীর শ্রদ্ধার সাথে ভাষা শহীদদের স্মরণ শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের বিনয়বাঁশী শিল্পীগোষ্ঠী’র উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালিত ঢাকা-কক্সবাজার পথে পাঁচ দিনে ৫ ‘বিশেষ ট্রেন’ আর্জেন্টিনার ক্লাব ছেড়ে আবাহনীতে খেলবেন জামাল? নওগাঁ আজ যথাযোগ্য মর্যাদায় মধ্যেদিয়ে পালিত হল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস লোহাগাড়ায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে বীর শহীদদের প্রতি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন লোহাগাড়ায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও শহীদ দিবস উপলক্ষে ব্রিকফিল্ড মালিক সমিতির পুষ্প অর্পণ

শাসনপ্রক্রিয়া কেমন হবে তা নিয়ে একটি প্রস্তাবনা পেশ করেছে মিশর

গাজায় ইসরাইল-হামাসের যুদ্ধ বন্ধে এবং ভবিষ্যতে ফিলিস্তিনের শাসনপ্রক্রিয়া কেমন হবে তা নিয়ে একটি প্রস্তাবনা পেশ করেছে মিশর। এতে তিন ধাপে বন্দি বিনিময় ছাড়াও গাজা থেকে ইসরাইলের সেনা প্রত্যাহার সম্পর্কে বলা হয়েছে।

আল জাজিরার সাংবাদিক বার্নাড স্মিথ জানিয়েছেন, সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) ‘উচ্চাভিলাষী’ এক প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে ইসরাইল, হামাস, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের দেশগুলোর নেতাদের কাছে।

 

মিশরের এ প্রস্তাবনায়, গাজা উপত্যকা থেকে ইসরাইলি সব সেনা প্রত্যাহার, ইসরাইলের কারাগারে বন্দি সব ফিলিস্তিনির মুক্তির বিনিময়ে সব ইসরাইলি বন্দিদের মুক্তি এবং যুদ্ধ শেষ হওয়ার পর গাজায় ফিলিস্তিনের নেতৃত্বে একটি ঐক্যবদ্ধ ‘টেকনোক্রেটিক’ সরকার গঠন করার কথা বলা হয়েছে।

প্রস্তাবনার প্রথম দফায়, ৭ থেকে ১০ দিনের একটি যুদ্ধবিরতির হবে। এই সময় হামাস ইসরাইলের সব বেসামরিক বন্দি ছেড়ে দেবে। বিনিময়ে ইসরাইলের কারাগার থেকে ছাড়া পাবে ফিলিস্তিনি বন্দিরা।

 
দ্বিতীয় ধাপে রয়েছে, সাত দিনব্যাপী আরেকটি যুদ্ধবিরতির কথা। এই যুদ্ধবিরতিতে হামাস ইসরাইলের নারী বন্দিদের মুক্তি দেবে। বিনিময়ে আরও ফিলিস্তিনিদের মুক্ত করা হবে ইসরাইলের কারাগার থেকে।

তৃতীয় ও শেষ ধাপে, ইসরাইলের সব সামরিক সেনাদের মুক্তির বিনিময়ে সব ফিলিস্তিনিকে মুক্তির বিষয়ে গাজায় যুদ্ধরত পক্ষগুলোর মধ্যে আলোচনা চলবে। মাসব্যাপী এই আলোচনার পর উভয় পক্ষের বন্দি বিনিময় শেষ হলে গাজা থেকে সব সেনা প্রত্যাহার করবে ইসরাইল।

 
মিশর ও কাতারের উদ্যোগে নেয়া প্রস্তাবনাটি প্রাথমিক পর্যায়ে আছে। ধারণা করা হচ্ছে, প্রস্তাবনার বিষয়ে সব পক্ষকে নিয়ে ঐকমত্যে পৌঁছানো সহজ হবে না। কিন্তু প্রস্তাবনাটি নিয়ে ইসরাইলের মন্ত্রিসভায় আলোচনা চলছে। যদিও গাজায় ক্ষমতা ভাগাভাগি করার বিষয়ে আপত্তি তুলেছে হামাস। 

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ওয়েবসাইট এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পুর্ণ বেআইনি
Design & Development BY ThemeNeed.Com