বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:১৬ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
প্রকাশক ও সম্পাদক : মোঃ বিল্লাল হোসেন।  আইনবিষয়ক সম্পাদক: অ্যাডভোকেট রাসেল । যোগাযোগ : ০৩১-৭২৮০৮৫, ০১৮১১৫৮৮০৮০ মেইল: bdprotidinkhabor@gmail.com জহুর উল্লাহ বিল্ডিং (৩য় তলা), পানওয়ালা পাড়া, চৌমুহনী, উত্তর আগ্রাবাদ ১২৭৭, চট্টগ্রাম।
সংবাদ শিরোনাম:
ভাষা শহিদদের প্রতি মৌলভীবাজার পুনাকের শ্রদ্ধাঞ্জলি মৌলভীবাজারে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে পুলিশ আওয়ামী লীগ হট্রগোল শ্রীমঙ্গলে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ গভীর শ্রদ্ধার সাথে ভাষা শহীদদের স্মরণ শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের বিনয়বাঁশী শিল্পীগোষ্ঠী’র উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালিত ঢাকা-কক্সবাজার পথে পাঁচ দিনে ৫ ‘বিশেষ ট্রেন’ আর্জেন্টিনার ক্লাব ছেড়ে আবাহনীতে খেলবেন জামাল? নওগাঁ আজ যথাযোগ্য মর্যাদায় মধ্যেদিয়ে পালিত হল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস লোহাগাড়ায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে বীর শহীদদের প্রতি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন লোহাগাড়ায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও শহীদ দিবস উপলক্ষে ব্রিকফিল্ড মালিক সমিতির পুষ্প অর্পণ

ঝিকরগাছায় পুলিশের সাথে বাটপারী করতে গিয়ে ধরা : মুচলেকায় মুক্তি

স্টাফ রিপোর্টার: যশোরের ঝিকরগাছা থানা পুলিশের এএসআই মোঃ ইয়াসিন আলীর সাথে বাটপারী করতে গিয়ে ধরা খেয়েছে বাজারের নগদ এজেন্ট বলাকা হার্ডওয়ারের প্রোপাইটর রেজাউল করিম ওরফে রেজা নামের এক ব্যবসায়ী। ঘটনা সূত্রে জানা যায়, থানা পুলিশের এএসআই মোঃ ইয়াসিন আলীর নগদ এ্যাকাউন্ডে তার সন্তানের শিক্ষা উপবৃত্তির টাকা আসে।

 

তার টাকার দরকার হওয়ায় রবিবার সকালে ঝিকরগাছা বাসস্ট্যান্ডের পাশে নগদ এজেন্ট বলাকা হার্ডওয়ারের প্রোপাইটর রেজাউল করিম ওরফে রেজা নিকট যান। তখন রেজা তার নগদের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে এএসআই মোঃ ইয়াসিন আলীর এ্যাকাউন্ডে থাকা নয়শত টাকা সে উত্তলন করে নিয়ে তাকে বলেন আপনার এ্যাকাউন্ডে সমস্যা আছে।

 

পরবর্তীতে পুলিশের এএসআই মোঃ ইয়াসিন আলী তার এ্যাকাউন্ড থেকে টাকা বের করতে না পেরে পাশ্ববর্তী হল রোডের নগদ এজেন্ট হান্নান আলীর নিকটে যান। তখন হান্নান আলী নগদ এজেন্ট চেক করে দেখেন তার এ্যাকাউন্ড থেকে টাকা উত্তলন করা হয়েছে। পরবর্তীতে এএসআই মোঃ ইয়াসিন আলী তার প্রতিষ্ঠানে গেলে তিনি থোতোমতো খেয়ে যায়। তাৎক্ষনিক জরুরী ডিউটি অফিসার এএস মেজবাহ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

 

থানার কর্তব্যরত অফিসার ইনচার্জ ঘটনার বিষয়ে শুনে রেজাউল করিম ওরফে রেজার পরিবারের লোকজনদের উপস্থিত করে ভবিষ্যতে এমন কাজ করবে না বলে প্রতিশ্রুতি দিয়ে মুচলেকায় মাধ্যমে মুক্তি করে দেন।

 

নগদ এজেন্ট বলাকা হার্ডওয়ারের প্রোপাইটর রেজাউল করিম ওরফে রেজা বলেন, আমি পিন সেটাপ করতে দিয়ে সমস্যা হয়। পরবর্তীতে টাকা উত্তোলন করা পর তাকে টাকা দেওয়ার জন্য খুজে পায়নি। সেই সময় আমি তার নাম্বারের ফোন করে আমি তাকে ডাকার আগে আমার দোকানে খরিদার আসার কারণে তাকে আমি ফোন দিতে পারিনি।

 

থানার অফিসার ইনচার্জ সুমন ভক্ত বলেন, নগদ এজেন্ট বলাকা হার্ডওয়ারের প্রোপাইটর রেজাউল করিম ওরফে রেজাকে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে তার পরিবারের লোকজনকে অবগত করে ভবিষ্যতে এমন কাজ করবে না বলে প্রতিশ্রুতি দিয়ে মুচলেকা দেওয়ার কারণে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ওয়েবসাইট এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পুর্ণ বেআইনি
Design & Development BY ThemeNeed.Com